স্টেম সেলের কাছে পরাস্ত হলো এইডস

স্টেম সেল ট্রান্সপ্লান্টের পাঁচ বছর পর এইডস থেকে পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠেছেন ‘বার্লিন পেশেন্ট’ নামে পরিচিত মার্কিন নাগরিক টিমোথি রে ব্রাউন। বুধবার ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি ইন সেইন্ট লুইস-এ জিন থেরাপি বিষয়ক এক সিম্পোজিয়ামে এইচআইভি থেকে আরোগ্য লাভের কথা জানান ব্রাউন এবং তার জার্মান চিকিৎসক ড. গেরো হাটার। খবর ওয়াশিংটন পোস্ট-এর।

এইডসবিষয়ক গবেষণায় টিমোথি ব্রাউন ‘দি বার্লিন পেশেন্ট’ বলে পরিচিত হয়ে ওঠেন কারণ, সেখানেই তার চিকিৎসা শুরু হয়েছিলো। ব্রাউনের বয়স এখন ৪৬।

১৯৯৫ সালে ব্রাউনের শরীরে এইচআইভির অস্তিত্ব ধরা পড়ে। ২০০৬ সালে লিউকেমিয়াতেও আক্রান্ত হন তিনি। কেমোথেরাপি দেয়ার পর টিমোথির রক্তে স্টেম সেল ট্রান্সপ্লান্টের প্রয়োজন হয়েছিলো। এই পর্যায়ে তার চিকিৎসার দয়িত্ব নেন জার্মানির হাইডেলবার্গ ইউনিভার্সিটির ব্লাড স্পেশালিস্ট ড. গেরো হাটার।

স্টেম সেল ট্রান্সপ্লান্টের জন্য রক্তে এইচআইভির বিরুদ্ধে এক বিরল ধরণের প্রতিরোধ ব্যবস্থা রয়েছে এমন একজন রক্তদাতাকে খুঁজে বের করেন ড. হাটার। উত্তর ইউরোপিয় জনসংখ্যার কেবল ১ শতাংশ ব্যক্তির শরীরে এইচআইভি ভাইরাসের বিরুদ্ধে এমন বিরল প্রতিরোধ ব্যবস্থা থাকে।

২০০৭ সালে ওই ডোনারের রক্ত থেকে সংগ্রহ করা স্টেম সেল ব্রাউনের শরীরে ট্রান্সপ্লান্ট করা হয়। এরপর থেকে কোনো ওষুধ ছাড়াই এইচআইভির সংক্রমণ ঠেকিয়ে বেঁচে আছেন ব্রাউন।

ড. হাটার বলেন, ‘এখন নিশ্চিত করে বলা যায়, এইচআইভি ভাইরাস থেকে ব্রাউন আরোগ্য লাভ করেছেন।’ ড. হাটার আরো জানান, ব্লাড স্টেম সেল ট্রান্সপ্লান্টের কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই ক্রমশ সুস্থ হতে শুরু করেন ব্রাউন।

এ বছরের শুরুতেই ব্রাউনের শরীরে আবারো এইচআইভি অস্তিত্ব পাওয়ায় ভাইরাস সংক্রমণ আবার ফিরে এসছে এমনটা সন্দেহ করেছিলেন অনেক গবেষক। তবে ড. হাটার জানিয়েছেন, ব্রাউনের শরীরে নতুন করে আবার এইচআইভির সংক্রমণ হয়নি। আগের ভাইরাসগুলোর অবশিষ্ট অংশই খুঁজে পেয়েছেন গবেষকরা।

ব্রাউনের শরীরে নতুন করে ভাইরাস সংক্রমণ ঘটানোর কোনো ক্ষমতা নেই ওই অবশিষ্ট অংশগুলোর- বলেছেন ড. হাটার।
এইডস থেকে আরোগ্য পাওয়া এখন পর্যন্ত একমাত্র ব্যক্তি টিমোথি রে ব্রাউন।

তথ্যসূত্র: http://tech.bdnews24.com/details.php?shownewsid=4207

ফেসবুক কমেন্ট


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

You may use

আপনি চাইলে এই এইচটিএমএল ট্যাগগুলোও ব্যবহার করতে পারেন: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

*