ডায়নামিক স্কাইস্ক্র্যাপার

ডায়নামিক স্কাইস্ক্র্যাপার

বিশ্বের ১ম ডায়নামিক [ঘুরতে বা নড়তে সক্ষম] আকাশচুম্বি ভবনতৈরি হচ্ছে দুবাইতে, ৮০ তলা বিশিষ্ট এই বিল্ডিং এর প্রতিটি ফ্লোর আলাদাভাবে ঘুরতেবা নড়তে পারে। প্রতিটি ফ্লোর প্রতি ১.৫ ঘন্টায় ১ বার ঘুরে আসতে পারবে। ৭০ তলার ২য়বিল্ডিংটি হবে মস্কোতে। বিল্ডিং এর আর্কিটেক্ট হলেন ড: ডেভিড ফিসার।


dyna_tower-dubai_img_7

এই বিল্ডিং এর আনুমানিক ব্যয় ধরা হয়েছে ৭০০ মিলিয়ন ডলার। ৪২০ মিটার উচ্চতার এই অত্যাধুনিক বিল্ডিং এর কনক্রিট এর কেন্দ্র থাকবে যার ভিত্তিতে ফ্লোর গুলো ঘুরবে [ছবি দেখুন]। ৩.৭ -৩৬ মিলিয়ন ডলার এ এর ফ্লোর বিক্রি হবে বলে আশা করা হচ্ছে, যার মধ্যে পারকিং, ইনডোর সুইমিং পুল, ভয়েস কনট্রোল সিসটেম ও সরবোপরি ২৪ ঘনটাই আলাদা দৃশ্য দেখার সুবিধা থাকবে।

 

পরিবেশ বান্ধব এ বিল্ডিং এ এর বিদ্যুৎ হবে নিজস্ব, প্রতিটি ফ্লোরের মাঝে অবস্থিত অানুভুমিক উইন্ড টারবাইন যা হতে ১২ লক্ষ কিলো ওয়াট বিদ্যুৎ উৎপন্ন হবে একই সংগে বহিদৃশ্যের ব্যাঘাত হতে রক্ষা করবে, ছাদে থাকবে সোলার প্যানেল। ড: ফিসার জানান যে বাতাস হল আকাশচুম্বি ভবনের জন্য বিরাট অসুবিধা, যে কারনে নড়নক্ষমতা, উইন্ড টারবাইন, সোলার প্যানেল ইত্যাদি ব্যবহার হবে। ঘোরার কারনে এটি সরবোচ্চ পরিমান আলো ব্যবহার করতে পারবে।

 

এর প্রতিটি ফ্লোর ৪০ টি আলাদা আলাদা নির্মানকেন্দ্রে তৈরি করে পরে এতে স্থাপন করা হবে। এতে ১০% কম খরচে এবং ৩০% বেশি নিখুত ভাবে এটি তৈরি হবে এতে কনস্ট্রাকশন সাইটের আবর্জনার পরিমান কম হবেএবং রিসোর্স বাচবে। এতে যথাসম্ভব প্রাকৃতিক ও রিসাইকেলেবল পদার্থ ব্যবহার হবে । নিরাপত্তার জন্য এতে ইনসুলেটেড ও বৃহৎ গ্লাস ব্যবহার হবে। বড় আকারের জানালা ব্যবহার হবে সারাদিন ব্যাপি পর্যাপ্ত আলোর জন্য।  ২০১০ সনে এটি শেষ হবার কথা।

 

মামুন২এএটজিমেইল, ঢাকা। সুত্র: http://www.boncherry.com/http://www.dubai-architecture.info/GALL/DUB-DT.htm ও উইকি

 

ফেসবুক কমেন্ট


One Comment

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

You may use

আপনি চাইলে এই এইচটিএমএল ট্যাগগুলোও ব্যবহার করতে পারেন: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

*